atv sangbad

Blog Post

atv sangbad > সারাদেশ > জাতীয় শিক্ষাক্রম ২০২১ বাতিলের দাবিতে স্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচিতে হামলা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

জাতীয় শিক্ষাক্রম ২০২১ বাতিলের দাবিতে স্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচিতে হামলা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

রংপুর, এটিভি সংবাদ 
 
জাতীয় শিক্ষাক্রম ২০২১ বাতিলের দাবিতে স্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচিতে হামলার প্রতিবাদে রংপুর প্রেসক্লাবের সামসনে ( ২ জানুয়ারী )  জানুয়ারি, রংপুর  সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, রংপুর উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে ছাত্র ফ্রন্টের সদস্য রাজু বাসফোরের সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, রংপুর জেলা আহ্বায়ক সাজু বাসফোর। সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ নারীমুক্তি কেন্দ্র,রংপুর জেলার সংগঠক এডভোকেট কামরুন্নাহার খানম শিখা।
বক্তারা বলেন,জাতীয় শিক্ষাক্রম ২০২১ বাতিলের দাবিতে সারাদেশব্যাপী ৫ লক্ষ স্বাক্ষর সংগ্রহের কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল ঢাকার আনোয়ারা বেগম হাইস্কুলে শিক্ষাক্রম বাতিলের দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের গণস্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচীতে সংগঠনের নেতা-কর্মী ও অভিভাবকদের ওপর ঢাকা দক্ষিণের কাউন্সিলরের নেতৃত্বে গুন্ডাবাহিনীর হামলা এবং নেতাকর্মীদের শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করে। এতে আহত হন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক, ঢাকা কলেজ শাখার সভাপতি নাহিয়ান রাহাত, অর্থ সম্পাদক নাহিয়ান শাবাব ও অভিভাবক মো. সেলিম, তাসনিম ফাতেমাসহ বেশ কয়েকজনের উপর হামলা করেছে স্কুলের সভাপতির নেতৃত্বে গুন্ডাবাহিনী।
বর্বর নির্লজ্জ প্রশাসন মহিলা অভিভাবকসহ সংগঠকদের উপর শারীরিক নির্যাতন করে এবং তাদের তিন থেকে চার ঘন্টা আটকে রাখা হয়। এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানাই। বক্তারা আরো বলেন আজকে দেশ ফ্যাসিবাদী কায়দায় পরিচালনা করা হচ্ছে। মানুষের মতপ্রকাশের অধিকার হরণ করা হচ্ছে। বিশ্ব পুঁজি বাজারের চাহিদার অনুযায়ী শ্রমিক তৈরি করার জন্য,বিবেক-মনুষ্যত্ব বিবর্জিত টেকনিক্রেট বানানোর জন্য শিক্ষাক্রম প্রণয়ন করা হয়েছে ।
শিক্ষাক্রমে প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা পদ্ধতি তুলে দেয়া হয়েছে। প্রতি ক্লাসে লিখিত পরীক্ষা চালু করা হয়েছে। পাশ-ফেল প্রথা তুলে দেয়া , নবম-দশম শ্রেণিতে বিজ্ঞান শিক্ষার গুরুত্ব কমানো, ত্রিভুজ, বৃত্ত, চতুর্ভুজ ইত্যাদি চিহ্নের মাধ্যমে মূল্যায়ন পদ্ধতি বাতিলসহ নম্বরভিত্তিক মূল্যায়ন পদ্ধতি চালু বাতিল হরেছে এবং ধারাবাহিক মূল্যায়নের নামে শিক্ষকদের হাতে মার্কস তুলে দেয়া , একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে পর পর দু’টি পাবলিক পরীক্ষা রাখা, প্রতি ক্লাসে শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন ও সনদ প্রদান করা হবে। ফলে শিক্ষা মান ক্রমাগত কমবে এবং শিক্ষা ব্যয় বাড়বে । এই জাতীয় শিক্ষাক্রম প্রণয়নের মাধ্যমে দেশ ও জাতিকে ধ্বংস করার এক নীল নকশা তৈরি করা হচ্ছে। এর প্রতিবাদে, শিক্ষা রক্ষার দাবিতে এদেশে সকল মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ব্রেকিং নিউজ :