নিকুঞ্জে অবৈধ এমএলএম ব্যবসা, প্রতারণার শীর্ষে ফাহাদ-দুলাল!

খিলক্ষেত থানা পুলিশের মদদে চলছে এই প্রতারণা ব্যবসা…

অনুসন্ধানী প্রতিবেদক, এটিভি সংবাদ 

রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন নিকুঞ্জ-২ এর ১ নং সড়কের ১ নং প্লটের ৬ তলায় গড়ে উঠেছে অবৈধ এমএলএম ব্যবসা। এসকেএফ গ্রুপ (SKF GROUP) এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান এসকেএফ হাউজিং লিমিটেড (SKF HOUSING LTD.) নামের এই অবৈধ প্রতিষ্ঠান দিয়ে অবৈধ পন্থায় হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানের নেই কোনো সত্যতা, নেই কোনো সঠিক কাগজপত্র। অথচ এখানে ব্যবস্থাপনা পরিচালক (Managing Director) হিসেবে দায়িত্বে আছেন ফখরুল ইসলাম ফাহাদ, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (Dy. Managing Director) হিসেবে রয়েছেন, মোঃ দুলাল মিয়া।

নামমাত্র প্রতিষ্ঠান অথচ এদের পুরোপুরি কার্যক্রমই চলছে অবৈধভাবে। সবকিছুর নেতৃত্বে রয়েছেন দুলাল মিয়া। গাজীপুর সদরের চান্দুরা গ্রামের নান্নু মিয়ার ছেলে দুলাল মিয়া। সুন্নাতি লেবাজ লাগিয়ে সাধারণ মানুষদের প্রতারণার ফাঁদে ফেলে সর্বশান্ত করাই তার কাজ। বিশেষ করে এসকেএফ হাউজিং লিমিটেড’র নামে তারা প্রতারণা করছে। শত শত বিঘা জমি রয়েছে এসকেএফ হাউজিংয়ের নামে এমন ভাব দেখিয়ে নিরীহ গ্রাহকদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, প্রতারক দুলাল মিয়া শুধু জমির সাইনবোর্ড দেখিয়ে নয়, এক লাখ বিনিয়োগ করলে মাসিক মুনাফা ১০ হাজার, পাঁচ লাখ বিনিয়োগ করলে মাসিক মুনাফা ৫০ হাজার এমন আকর্ষণীয় প্রলোভন দেখিয়েও হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

আমাদের প্রশ্ন বর্তমান সরকার অনেক আগেই উল্লেখিত এমএলএম প্রতারণা ব্যবসা যাতে দেশের কোথাও পরিচালিত হতে না পারে সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদেরকে নির্দেশনা দিয়েছিলেন, অথচ কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ না থাকায় আজ এই প্রতারক সিন্ডিকেট বড়ই বেপরোয়া।

এসকেএফ হাউজিং লিমিটেড’র এমডি রয়েছেন শুধু নামমাত্র, সকল কার্যক্রমের মূলে ডিএমডি দুলাল মিয়া। প্রথমে গাজীপুরে জমির সাইনবোর্ড দেখিয়ে মানুষ ঠকানো এই প্রতারণা ব্যবসা শুরু করে দুলাল মিয়া। ওখান থেকে এক পর্যায়ে গণধোলাই খেয়ে চলে আসে রাজধানীর উত্তরায়। উত্তরায় এসে তার নিজস্ব পন্থায় কিছু জনবল নিয়ে শুরু করে একই প্রতারণা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম হয় মেহেদী প্রপার্টিজ লিমিটেড।

অল্প কিছুদিনের মধ্যে দুলাল মিয়ার ব্যাপক প্রতারণা ধরা পরে তাদের কাছে। এক পর্যায়ে মেহেদী প্রপার্টিজ লিমিটেড প্রতারণার কারণে দুলাল মিয়াকে গত ১৫/১২/২০১৯ ইং প্রতিষ্ঠান থেকে অব্যাহতি দেয়। কিন্তু থেমে নেই প্রতারক দুলাল।

নতুন পরিকল্পনায়, নতুন সিন্ডিকেট নিয়ে দুই মাস পূর্বে রাজধানীর নিকুঞ্জ-২ (প্লট-১, রোড-১, নিকুঞ্জ-২) গড়ে তুলে নতুন ঠিকানা নতুন নামের প্রতিষ্ঠান এসকেএফ হাউজিং লিমিটে। প্রতারণা প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ দুই হচ্ছেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (Managing Director) ফখরুল ইসলাম ফাহাদ, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (Dy. Managing Director) মোঃ দুলাল মিয়া।

খিলক্ষেত থানা পুলিশকে হাতে রেখেই চলছে ফাহাদ-দুলালের এই প্রতারণা ব্যবসা। নিয়মিত অর্থ পেয়ে যাচ্ছেন থানা পুলিশের সদস্যরা। অর্থ পেয়েই চুপ এ হতে পারেনা, তবে কি করে চলে এ প্রতারণা ব্যবসা প্রশাসনের নাকের ডগায়?

চোখ রাখুন এটিভি সংবাদে। আগামী পর্বে আসছি আরো বিস্তারিত নিয়ে… 
image_print
SHARE