দিনাজপুরে মোবাইলে ধারনকৃত সাবেক স্ত্রীর অশ্লীল ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার হুমকিতে আটক ১

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের বিরামপুরে সাবেক স্ত্রীর বাবার করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় আব্দুল্লাহ আল হাসান (২৬) নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। সোমবার ভোররাতে ঘোড়াঘাট রেলগুমটি এলাকা থেকে পুলিশ তাকে আটক করে। আব্দুল্লাহ জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার বয়রা গ্রামের মোঃ মামুনুর রশিদের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ১২ জুলাই মাসে দিনাজপুর জেলার হাকিমপুর উপজেলার মুখুরিয়া গ্রামের মোঃ জামান আলীর মেয়ে ফারজানা আক্তার নাইস (২২)-কে আব্দুল্লাহ বাড়ি থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে জয়পুরহাট নোটারী পাবলিক কার্যালয়ে গিয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে করেন। বিয়ের কিছুদিন পর আব্দুল্লাহ ২০১৩ সালে চীনে চলে যায়। স্ত্রীর সাথে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলার সময় বিভিন্ন ধরণের অশ্লীল ভিডিও দৃশ্য স্ক্রিনশর্ট করে রাখত। পরবর্তীতে দেশে আসার পর স্ত্রীকে বিভিন্নভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করলে ২০১৮ সালের ১৩ আগস্ট ফারজানা আক্তার নাইস তার স্বামীকে তালাক দেয়।

এ ব্যাপারে মামলা বাদী জামান আলী বলেন, আমার মেয়ে তার স্বামীকে তালাক দেয়ার পর বিভিন্ন ধরণের ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকি দিতে থাকে আব্দুল্লাহ। গত ২০ ফেব্রুয়ারি আব্দুল্লাহ তার মোবাইলে রাখা অশালীন ছবিগুলো বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে আমার মেয়ের, আমার আরেক জামাতা, মেয়ের বন্ধু-বান্ধবীসহ আত্মীয় স্বজনের ফেইসবুক মেসেঞ্জারে প্রেরণ করেন। এবং বাকি ভিডিওগুলো সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করার হুমকি প্রদান করেন।

এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনিরুজ্জামান মনির বলেন, রবিবার রাতে আব্দুল্লাহর সাবেক স্ত্রীর বাবা মোঃ জামান আলী বিরামপুর থানায় একটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। সেই রাতেই পুলিশের একটি দল ঘোড়াঘাট রেলগুমটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। সোমবার দুপুরে আব্দুল্লাহকে আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।