দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রেক্ষাপটের সিনেমায় নুসরাত জাহান

আনন্দ ঘর ডেস্ক: প্রেক্ষাপট ১৯৪২-৪৩ সালের। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ তখন চলমান। হিটলারের রণকৌশল নিয়ে চলছে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা। যার মধ্যে ছিল বায়োলজিক্যাল ওয়ারফেয়ারও। ওই সময়ে এক বিজ্ঞানীর আবিষ্কৃত ভাইরাসের অপব্যবহার শুরু করে নাৎসি বাহিনী।

বিষয়টি বুঝতে পেরে ওই বিজ্ঞানী ভাইরাসটি নাৎসি বাহিনীর কিছু সৈন্যর মধ্যে ছড়িয়ে দেয়। একই সঙ্গে লুকিয়ে ফেলে তার অ্যান্টিডোটের ফর্মুলাটিও। এর সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে চলমান মহামারির বিষয়টি। এভাবে সাজানো হয়েছে ‘স্বস্তিক সংকেত’ সিনেমার চিত্রনাট্য। কলকাতার দেবারতি মুখোপাধ্যায়ের ‘নরক সংকেত’ উপন্যাস অবলম্বনে এই সিনেমার কাহিনি পুনর্নির্মাণ, চিত্রনাট্য ও সংলাপ রচনা করেছেন সৌগত বসু। এটি নির্মাণ করছেন টলিউড পরিচালক সায়ন্তন ঘোষাল।

গল্পে অ্যান্টিডোটের ফর্মুলাটি খুঁজে বের করার কাজ শুরু করে রুদ্রাণী আর প্রিয়ম। এই দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন টলিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান ও গৌরব চক্রবর্তী। প্রথমবার একসঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করছেন তারা।

এতে আরো অভিনয় করবেন—রুদ্রনীল ঘোষ, শাশ্বত চ্যাটাজি প্রমুখ। চলতি মাসের শেষে শুটিংয়ের উদ্দেশ্যে লন্ডনে পাড়ি জমাবে শুটিং টিম।

গত জুলাই মাসে ‘এসওএস কলকাতা’ নামে নতুন একটি সিনেমায় নাম লিখিয়েছেন নুসরাত জাহান। এতে প্রথমবার একসঙ্গে অভিনয় করছেন যশ দাশগুপ্ত, নুসরাত জাহান ও মিমি চক্রবর্তী। অংশুমান প্রত্যুষ পরিচালিত এ সিনেমার শুটিং গত ৮ জুলাই শুরু হয়েছে। লকডাউনের পর এ সিনেমার মাধ‌্যমে শুটিংয়ে ফিরেন নুসরাত।

এছাড়া ‘ডিকশনারি’ নামে আরেকটি সিনেমার কাজ নুসরাতের হাতে রয়েছে। ব্রাত্য বসু পরিচালিত এ সিনেমার শুটিং বাকি রয়েছে।