মস্কোয় বৈঠকে বসছে চীন-ভারত

দেশের বাইরে ডেস্ক: গত মে মাস থেকে পূর্ব লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা কমার লক্ষণ দেখা দিলেও ফের বেড়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, লাদাখে বিপুল আকারে চীনা সেনা বাড়লেও ভারতীয় সেনারা প্রতিরোধ গড়েছে। যুদ্ধাংদেহী পরিবেশের মধ্যেই রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে বৈঠকে বসেছিল ভারত ও চীনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

সীমান্তে একের পর এক উসকানিমূলক কাজ প্রকাশ্যে চলে আসায় মস্কোতে ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে বৈঠকের অনুরোধ জানান চিনা প্রতিরক্ষামন্ত্রী উই ফেংঘে। বেইজিংয়ের এই অনুরোধ গ্রহণ করে দিল্লি।

মস্কোতে শুরু হওয়া তিন দিনের সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন সম্মেলনে প্রথম দিন শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) দেখা করেছেন দুই মন্ত্রী। মস্কোর একটি বিলাসবহুল হোটেলে ভারতীয় সময় রাত সাড়ে ৯টা থেকে প্রায় আড়াই ঘণ্টার বৈঠক হয় ফেংঘে ও রাজনাথের মধ্যে।

বৈঠক শুরুর আগে রাজনাথ বলেছেন, ‘এই অঞ্চলে শান্তি ও সুরক্ষা, আস্থা, মতপার্থক্যের শান্তিপূর্ণ সমাধান ও আন্তর্জাতিক নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধার পরিবেশ দাবি করে।’

প্রসঙ্গত, লাদাখ নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা কী হবে, সে বিষয়ে মঙ্গলবার উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। উপস্থিত ছিলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, সামরিক বাহিনীর প্রধান বিপিন রাওয়াত, সেনাপ্রধান এমএম নারাভানে, ডিজি মিলিটারি অপারেশন লেফট্যানেন্ট জেনারেল পরমজিৎ সিং।

এদিকে গত সোমবার থেকে টানা পঞ্চমবারের জন্য চীনের সঙ্গে বৈঠকে বসেছে ভারতীয় সেনার উচ্চপদস্থ কর্তারা। সেখানে কোনও সমাধান হচ্ছে না। সেনা সরানোয় নারাজ হয়ে ক্রমাগত সেনাশক্তি ও অস্ত্রভান্ডার দেখাচ্ছে পিপলস লিবারেশন আর্মি।