উখিয়ায় পুড়ে যাওয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কক্সবাজার প্রতিনিধি, এটিভি সংবাদ

কক্সবাজারের উখিয়ায় বালুখালীতে আগুনে পুড়ে যাওয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে তিনি ভস্মীভূত বালুখালীর বিভিন্ন ক্যাম্প পরিদর্শন করেন।

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে র‍্যাবের তত্ত্বাবধানে ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করেন। রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন ও বস্ত্র বিতরণ শেষে তিনি আগুনে পুড়ে যাওয়া এপিবিএন পুলিশ ফাঁড়ি পরিদর্শন করেন।

এ সময় তিনি বেশ কয়েকজন নারী পুলিশ সদস্যের সঙ্গে ঘটনার ব্যাপারে কথা বলেন। তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ইতোমধ্যে ঘটনার তদন্তে দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে বলা যাবে ঘটনাটি কীভাবে ঘটেছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে বিভিন্ন দাতা সংস্থা কর্তৃক ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের মাঝে সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার টুরিস্ট পুলিশের এসপি জিল্লুর রহমান, কক্সবাজারের র‍্যাব-১৫ এর অধিনায়ক আজিম উদ্দিন, জেলা পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান, এপিবিএন পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম, উখিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিজাম উদ্দিন আহমেদ ও উখিয়া থানার ওসি আহাম্মদ সনজুর মোরশেদ।

এর আগে দুপুর ১টার দিকে এপিবিএন পুলিশ ফাঁড়িতে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) শাহ রেজওয়ান হায়াত সাংবাদিকদের বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রোহিঙ্গাদের জন্য তাঁবুর ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতোমধ্যে রোহিঙ্গারা নিজ নিজ বসতিতে ফিরতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার বিকালের মধ্যে বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সমস্ত রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পে ফেরত আনা হবে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার তদন্ত কমিটি ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে। এখনো পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা ১১ জন বলবত রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয়দের ক্ষতিপূরণের বিষয়টিও সরকার বিবেচনা করছে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বালুখালী রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে প্রায় সাত ঘণ্টার আগুনে ১১ জনের মৃত্যুসহ ৯ হাজার ৩শ’ ঘরবাড়ি, ১৩৬টি লার্নিং সেন্টার, দুটি বড় হাসপাতাল ও মূল্যবান জিনিসপত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এছাড়াও মসজিদ, দোকানপাট ও বিভিন্ন এনজিও সংস্থার ভবন পুড়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে।