পদ্মায় ডুবে যাওয়া সেই মাইক্রোবাস চালকের মরদেহ উদ্ধার

মিরাজ গাজী (রাজবাড়ি), এটিভি সংবাদ 

পদ্মায় নিখোঁজের ৪৮ ঘন্টা পর রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের পল্টুনের তার ছিড়ে ডুবে যাওয়া চালক মো. মারুফ হোসেন (৪৪) এর লাশ উদ্ধার করেছে নৌ পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সকালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের পদ্মা নদীর ৭নং ফেরিঘাট এলাকায় একটি লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে দৌলতদিয়া নৌ পুলিশকে খবর দিলে তারা লাশটি উদ্ধার করে।

পরে দৌলতদিয়া অপেক্ষমান থাকা তার দুই ভাই ও স্বজনদের খবর দেয় নৌ পুলিশের পরিদর্শক মো. মুন্নাফ আলী। নিহতের দুই ভাই নিশ্চিত করেন লাশটি তার ভাই মো. মারুফ হোসেনের।

নিখোঁজ মারুফ (৪৪) সিলেট জেলার জকিগঞ্জ উপজেলার সুন্দরারচক গ্রামের মৃত মানিক হোসেনের ছেলে।

দৌলতদিয়া নৌ পুলিশের পরিদর্শক মুন্নাফ আলী বলেন, আমরা পদ্মা নদীতে নজর রেখেছিলাম মরদেহের ব্যাপারে। স্থানীয় এক সোর্স তাদের খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। পরিবারের সদস্যরা নিশ্চিত করেছেন এটি তার ভাইয়ের লাশ। তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসনের সাথে পরামর্শ করে লাশটি পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এর আগে, গত মঙ্গলবার সাড়ে ১১ টায় মাইক্রোবাসটি দৌলতদিয়ার ৫ নং ঘাটের পন্টুন হতে নদীতে পড়ে যায়। প্রচন্ড ঝড়ো বাতাসে পন্টুনের তার ছিড়ে গেলে ঝাঁকুনিতে মাইক্রোবাসটি নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। টানা ২ ঘন্টা উদ্ধার তৎপরতা শেষে মাইক্রোটিকে উপরে তুলতে সক্ষম হন ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী ডুবুরি দল।

গাড়ী উদ্ধার করতে পারলেও গাড়ীর চালকের সন্ধান পায়নি ফায়ার সার্ভিসের ডুবরী দল।