সারাবিশ্বে আক্রান্ত ১৮ কোটি ২২ লাখ, মৃত্যু ছাড়িয়েছে সাড়ে ৩৯ লাখ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, এটিভি সংবাদ

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ছয় হাজারের বেশি মানুষ। সংক্রমিতের সংখ্যাটাও কম নয়। আগের দিনের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিতের সংখ্যাটা কিছুটা বেড়েছে।
গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ভারতে। অন্যদিকে দৈনিক মৃত্যুতে সোমবারের মতো মঙ্গলবারও ব্রাজিল রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৮ কোটি ২২ লাখের কাছাকাছি। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা সাড়ে ৩৯ লাখ ৪৫ হাজার ছাড়িয়েছে।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫ হাজার ৯৪৯ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু কমেছে ৩৭ জন। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩৯ লাখ ৪৫ হাজার ৯৮ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ১৩ হাজারের বেশি। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় চার হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ২১ লাখ ৮০ হাজার ২০৭ জনে।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৪৫ লাখ ১১ হাজার ৩৭৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৬ লাখ ১৯ হাজার ৫৯৬ জন।

আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৫৮ জন। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী এক কোটি ৮৪ লাখ ৪৮ হাজার ৪০২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ১৪ হাজার ২০২ জনের।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯০৭ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ৩ লাখ ১৬ হাজার এবং মারা গেছেন ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৬৬৮ জন।

এদিকে বাংলাদেশে সোমবারের (২৮ জুন) আপডেট অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১০৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ২৭৬ জনে। একই সময়ে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন রেকর্ড ৮ হাজার ৩৬৪ জন। শুধুমাত্র রাজধানীতেই এক দিনে শনাক্ত ৩,১৬৫ রোগী। এর আগে চলতি বছরের ৭ এপ্রিল সর্বোচ্চ ৭ হাজার ৬২৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।