বৃষ্টি আরো জোরদার করেছে ‘লকডাউনকে সফল করেছে

বরিশাল প্রতিনিধি, এটিভি সংবাদ

বৃহস্পতিবার (০১ জুলাই) দুপুর ২টা থেকে ‍গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়। ‍এর কিছুসময় পর শুরু হয় মুষলধারে বৃষ্টিপাত। এদিকে ‘লকডাউনের’ প্রথম দিন সকালে বরিশাল নগরের রাস্তায় পণ্য ও জরুরি সেবার পরিবহন ছাড়াও মোটরসাইকেল ও রিকশার চলাচল তুলনামুলক বেশি দেখা গেলেও, বৃষ্টি শুরুর পর রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে যায়। যদিও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নগরে ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করতে দেখা যায়নি।

এছাড়া বৃষ্টি শুরুর পর প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের হওয়া মানুষগুলোকেও আর সড়কে দেখা যায়নি।সকালে নগরের রাস্তাঘাটে পণ্য ও জরুরি সেবার গাড়ি ছাড়াও রিকশা ও মোটরসাইকেলের চলাচল দেখা গেছে। তবে দুপুরে বৃষ্টি শুরুর পর রাস্তাঘাট ‍একবারেই ফাঁকা হয়ে যায়। ‍এককথায় বৃষ্টি ‘লকডাউনকে’ পুরোপুরি সফল করেছে। এভাবে হয়তো ‍আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীও পারতো না।

বরিশাল ‍আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র পর্যবেক্ষক প্রণব কুমার রায় জানান, বর্তমান সময়টা বৃষ্টিপাত হওয়ার। ‍কখনো ‍একটানা ‍আবার কখনো বিরতি দিয়ে বৃষ্টিপাত হতে পারে। ‍আজ দুপুর পৌনে ২টা থেকে সোয়া ৩টা পর্যন্ত বরিশালে ৩৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে বলেও জানান তিনি। অপরদিকে ওষুধ ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দোকানপাট খোলা থাকলেও অন্যান্য দোকানপাট ও শপিংমল বন্ধ রয়েছে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেল জানিয়েছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত কঠোর ‘লকডাউন’ বাস্তবায়নে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকে বরিশাল মহানগরের সকল গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে চেকপোস্ট পরিচালনা করছে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ।

সকাল ১০টার দিকে ‘লকডাউন’ বাস্তবায়নে বিএমপি’র সংশ্লিষ্ট বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিয়ে এসময় চেকপোস্টগুলোর কার্যক্রম সরেজমিনে তদারকি করেন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বিপিএম-বার। এসময় তিনি চেকপোস্টে দায়িত্বরত সকল অফিসার ও ফোর্সদের সরকারি প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী কঠোর অবস্থানে থেকে ‘লকডাউন’ বাস্তবায়নের নির্দেশ দেন।

এছাড়া জেলা প্রশাসনের মিডিয়া সেল জানিয়েছে, সকাল থেকে নগরে তিনটি ভ্রাম্যমাণ ‍আদালত তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে।