আওয়ামী লীগের উপ-কমিটি থেকে বাদ হেলেনা জাহাঙ্গীর

সৈকত মনি, এটিভি সংবাদ 

আওয়ামী লীগের নীতিগত বৈশিষ্ট্য ক্ষুন্ন করাসহ দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে নারী বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য পদ থেকে বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শনিবার (২৪ জুলাই) গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি।

তিনি বলেন, ‘উনি তো কুমিল্লা আওয়ামী লীগের সদস্য। আওয়ামী পরিবারের হিসেবেই আমি জানি। ওনার জয়যাত্রা টেলিভিশন নামে একটা মিডিয়া আছে, যেটার সঙ্গে আমাদের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী মহোদয় আছেন। এই সুবাদেই উপ-কমিটিতে ওনাকে আমরা রেখেছি।

কিন্তু উনি কী করছেন? আমাদের না জানিয়ে করছেন। আমি ইতোমধ্যে আমাদের দপ্তরে জানিয়েছি, তাকে চিঠি দেয়া হয়েছে। আমাদের উপ-কমিটিতে যেহেতু তিনি নিয়মনীতি ভঙ্গ করেছেন, তিনি কী করছেন, আমাদের জানাননি, তার সদস্যপদ আমরা বাতিল করে দিয়েছি।

জয়যাত্রা গ্রুপের কর্ণধার হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি হিসেবেও পরিচয় দেন।

সম্প্রতি ফেসবুকে ‘বাংলাদেশ আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ’ নামের একটি সংগঠনের সভাপতি হিসেবে হেলেনা জাহাঙ্গীরের নাম আসে। সেই কারণেই তাকে উপ-কমিটির পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক।

‘চাকরিজীবী লীগ’ নামে সংগঠনটির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, তারা দুই-তিন বছর ধরেই আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন হিসেবে অনুমোদন পাওয়ার চেষ্টা করছে। তবে আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, সংগঠনটির সঙ্গে আওয়ামী লীগের কোনো সম্পর্ক নেই।

এ বিষয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীর মিডিয়াকে বলেন, আমি এখন পর্যন্ত অফিসিয়াল কোনো চিঠি পাইনি। এ রকম সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে আমার কিছু করার নেই।

জয়যাত্রা টেলিভিশনের কর্ণধার হেলেনা জাহাঙ্গীর নিজেকে আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর সভাপতি হিসেবে যে পরিচয় দেন- তা ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে মন্তব্য করেন, এটিভি সংবাদের সম্পাদক এস এম জামান।

সম্পাদক এস এম জামান বলেন, ২০২০ সালের প্রথমদিকে রাজধানীর মিরপুরে জয়যাত্রা টেলিভিশনের কার্যালয়ে যাওয়া হয়েছিল তাদের দাওয়াতে। ২০/২৫ জন বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিক সেখানে উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে হেলেনা জাহাঙ্গীর আত্মপ্রকাশ করেন তিনি “আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ” নামের একটি সংগঠন করবেন। তার কথায় তার নিজের তৈরি করা সাংবাদিকরা বাহবা জানালেন, এবং তার টেবিলে থাকা প্লাস্টিকের ফুল হাতে তুলে দিয়ে সভাপতি বানিয়ে ফেললেন। রাতে এ সংবাদ প্রচার হলো তার জয়যাত্রা টেলিভিশনে।

এভাবেই হেলেনা জাহাঙ্গীর “আইপি টিভি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ” এর সভাপতি।

হেলেনা জাহাঙ্গীর এদেশে একজন বিতর্কিত নারী। যাকে নিয়ে সমাজে কোন আলোচনা আসেনা। আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নকারী হেলেনা জাহাঙ্গীরকে নারী বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য পদ থেকে বাতিলের সিদ্ধান্তে সাধুবাদ জানিয়েছেন এস এম জামান।