চীনে এবার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের হানা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, এটিভি সংবাদ

করোনাভাইরাস মহামারি ঠেকাতে চীনের জিরো টলারেন্স নীতিকে চোখ রাঙিয়ে সেখানে এবার ছড়িয়ে পড়ছে অতিসংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। সম্প্রতি দেশটির জিয়াংসু প্রদেশের রাজধানী নানজিং শহরে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সেখানে ১৭৭ জনের শরীরে ডেল্টা শনাক্ত হয়েছে বলে ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়েছে।

নানজিং শহরে ডেল্টার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সেখানকার ৯০ লাখের বেশি মানুষকে সেমি-লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে। শহরে ট্যাক্সি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সবধরনের সামাজিক কর্মকাণ্ডেও বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। শহরটিতে তৃতীয় ধাপে করোনা শনাক্তে নিউক্লিক অ্যাসিড টেস্ট শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।

চীনা বার্তা সংস্থা শিনহুয়া জানায়, নানজিং শহরের বিমানবন্দরের এক কর্মী যথেষ্ট সুরক্ষা ব্যবস্থা না নিয়ে আন্তর্জাতিক উড়োজাহাজ পরিষ্কার করছিলেন। সেখান থেকে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৯২ হাজার ৮১১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন, মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৩৬ জন।

মহামারির শুরুতেই সংক্রমণ রোধে কঠোর পদক্ষেপ নেয় চীন। দেশটির বিভিন্ন রাজ্যের মধ্যে অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়া হয় এবং সংক্রমণ কমাতে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হয় সীমান্ত অঞ্চলগুলো। ইতোমধ্যে দেশটির মোট জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেককে করোনা টিকা দেয়া হয়েছে। চীনের শীর্ষ গবেষকরা বলছেন, অন্তত ৮০ শতাংশ মানুষের মধ্যে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হওয়ার কথা। কিন্তু এবার ডেল্টার কারণে আবারও শঙ্কা তৈরি হচ্ছে।

ডেল্টার প্রকোপ ছড়িয়েছে বহু দেশে। গত কয়েক মাসে সবচেয়ে নাজুক অবস্থা ছিল ভারতের। এখন আবার যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বেশ কয়েকটি দেশে দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনার এ ধরন। বিশ্বজুড়ে জোর কার্যক্রম চললেও এখনো বহু মানুষ ভ্যাকসিনের আওতার বাইরে। ফলে ডেল্টার সংক্রমণ নিয়ে নতুন করে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।