বরেণ্য সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম ও রফিকুল ইসলামকে এনএনসির সংবর্ধনা

নিউজ ডেস্ক, এটিভি সংবাদ

শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম মন্টুকে জাতীয় সংবাদ সংগ্রহ সংস্থা এনএনসির এক ভার্চুয়াল সংবর্ধনা প্রদান করেন সংস্থার প্রধান আলহাজ্ব মাসুম বিল্লাহ। সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন, জার্মান বাংলা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি খান লিটন। সভাপতিত্ব করেন, প্রবীন রাজনীতিবিদ আবুল হোসাইন।

অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল মতিন সবাইকে শুভেচ্ছা জানান । রোজিনা ইসলাম দৈনিক প্রথম আলোর জৈষ্ঠ সাংবাদিক সম্প্রতি তার বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার জন্য আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেন। তার মধ্যে নেদারল্যান্ড থেকে Winner of Most Resilient Journalist অন্যতম। রফিকুল ইসলাম মন্টু বাংলাদেশের উপকূলের প্রান্তিক জনপদ ও প্রান্তিক মানুষের জীবন যুদ্ধ নিয়ে লিখেন এবং তাদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেন।

সম্প্রতি গ্লাস্কোতে পরিবেশ বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে তার তোলা পরিবেশ বিপর্যয়ের ছবি প্রদর্শিত হয়। তাছাড়া তিনি People of Nature Award 2021 লাভ করেন । তাদের এই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি ও অর্জনের জন্য এনএনসি অভ্যর্থনার আয়োজন করেন। যুক্ত হয়েছিলেন জার্মান প্রবাসী লেখক, সাংবাদিক ও প্রথম আলোর জার্মান প্রতিনিধি সরাফ আহমেদ। তিনি বলেন, সাংবাদিকতা একটি ঝুঁকিপূর্ন পেশা, এই পেশায় সাহস ও সততা নিয়ে কাজ করার জন্য গুনী দুই সাংবাদিককে অভিনন্দন জানান। তিনি আরো বলেন, রোজিনা ইসলামকে যে কারনে গ্রেফতার করা হয়েছিলো, তা সঠিক ছিলো না বলে তার বিশ্বাস। তিনি জার্মানি থেকে রোজিনার মুক্তির জন্য বিবৃতি দিয়েছিলেন। বলা বাহুল্য, সরাফ আহমেদ সম্প্রতি ১৫ আগস্টের পর জার্মানি তথা ইউরোপে বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার অবস্থানের উপর একটি বই লিখেছেন- যা বেশ তথ্য সমৃদ্ধ ।

আলোচনায় আরো অংশ নেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল ও এনএনসির পৃষ্ঠপোষক এস এম নজরুল ইসলাম। তিনি তার বক্তৃতায় দুই সাংবাদিককে বাংলাদেশের গৌরব বলে উল্লেখ করেন। আলোচক সাবেক সংসদ সদস্য ও এনএনসির উপদেষ্টা এডভোকেট নাভানা আক্তার, তিনি সাংবাদিকদের অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

ইবাইস ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর ড, জাকারিয়া লিংকন বলেন, সরকার ও প্রশাসন তারপর হচ্ছে সাংবাদিকদের ভূমিকা দেশের জন্য। তাই এমন কোন সংবাদ প্রচার করা উচিত না যা দেশ ও দশের জন্য ক্ষতিকর। তিনি রোজিনা ও মন্টুকে তাদের সফলতার জন্য অভিনন্দন জানান। বিশিষ্ট লেখক সাংবাদিক লিজা কামরুন্নাহার বলেন, রোজিনা ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম মন্টু তাদের স্ব স্ব দায়িত্বপালন করে যে সফলতা এনেছেন তা অন্য সংবাদকর্মীদের জন্য অনুপ্রেরনা হিসেবে কাজ করবে।

এনএনসির ভাইস প্রেসিডন্ট হুমায়ন কবির ভূঁইয়া বলেন, এই গুনী সাংবাদিকরা বাংলাদেশের গৌরবময় সন্তান। অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা ও সার্বিক ব্যবস্থাপক খান লিটন তার ছোট বেলার বন্ধু ও একসাথে হাতে ব্লক বসিয়ে সাপ্তাহিক বরগুনা কন্ঠে সাংবাদিক হিসেবে কাজ করেছেন, প্রান্তিক মানুষের খবরের প্রাণপুরুষ রফিকুল ইসলাম মন্টুর সাথে তার বর্ণনা দেন। রোজিনা ইসলাম যখন গ্রেফতার হয়েছিলেন তখন বিশ্ব সাংবাদিক ফোরামের ব্যানারে খান লিটন ভার্চুয়াল প্রতিবাদে দূর্বার আন্দোলন করেন। তাই প্রবাসী সাংবাদিকরা তার দু:খে যেমন পাশে ছিলেন, আজ সুখেও পাশে। সংবাদ সংগ্রহ সংস্থার সাথে থেকে সংবাদ জাদুঘরকে সবার জন্য ইতিহাসের স্বাক্ষী হিসেবে গড়ে তোলার আহবান জানান পরিচালক আলহাজ্ব মাসুম বিল্লাহ।

আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রাপ্ত দুই সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম মন্টু ও রোজিনা ইসলাম তাদের অভ্যর্থনা ও সন্মান জানানোর জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এনএনসির প্রতি । তারা তাদের সাংবাদিকতার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির অনুভুতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, এই প্রাপ্তি তাদের কাজের আরো সাহস ও শক্তি দিয়েছে। জেল জুলুম রোজিনার আগামী দিনের ভাল কাজের প্রেরনা হিসেবে দেখছেন বলে জানান । রোজিনা তার সম্পাদক ও সহকর্মী এবং সবাই যারা তার গ্রেফতারের সময় আন্দোলন করেছেন, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। রফিকুল ইসলাম মন্টু প্রান্তিক মানুষদের নিরাপদ জীবন যাপনের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্তদের দৃষ্টি আকর্ষন করেন। আয়োজক মিডিয়া কর্মীদের সবাইকে সবার পাশে থাকার বিনীত অনুরোধ জানান।

জাতীয় সংবাদ সংগ্রহ সংস্থা (এনএনসি) এর প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব মাসুম বিল্লাহ’র এ ধরনের উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন, এটিভি সংবাদের সম্পাদক এস এম জামান।