অবৈধ গ্যাস সংযোগ চালাচ্ছেন দক্ষিণখান মাঝিবাড়ির আব্দুল মমিন

রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার 

জালাল উদ্দিন চৌধুরী, এটিভি সংবাদ 

রাজধানীর দক্ষিনখানে তিতাস গ্যাসের অনুমোদন না নিয়ে নিজ উদ্যোগে অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ করেছেন নগরবাড়ী এলাকার মাঝিবাড়ী মসজিদ সংলগ্ন ৪০ নং মুন্সিবাড়ীর মালিক আব্দুল মমিন।

আবাসিক এলাকা হওয়া সত্বেও বাড়ির মালিক আব্দুল মমিন নিচতলায় বর্তমানে সেখানে বানিজ্যিক হিসেবে মুদিদোকান ও টেইলার্স ভাড়া দিয়েছেন। জানা যায় তার বাড়ীতে দু’টি সাংবাদিক পরিবার ভাড়াটিয়া থাকায় সে এই অবৈধ সংযোগ ব্যবহার করে পার পেয়ে যাচ্ছেন।

সরেজমিনে ও এলাকাবসীর তথ্য মতে জানা যায়, নগরবাড়ী এলাকার মাঝিবাড়ী মসজিদ সংলগ্ন ৪০ নং মুন্সিবাড়ীর মালিক আব্দুল মমিন এর বাড়িতে তিতাস গ্যাস কোম্পানীর অনুমোদিত চুলা মাত্র দুটি। এর মধ্যে তিনি ৬ তলা ভবনে প্রতিটি ফ্ল্যাটে একটি করে ডাবল চুলা ব্যবহার করছেন।

তিনি বর্তমানে প্রায় ১০ থেকে এগারটি ডাবল চুলা তিতাস গ্যাস কোম্পানীর অনুমোদন ব্যতিত চালাচ্ছেন। এলাকার জলিল মিয়া প্রতিবেদককে বলেন, এ বাড়িতে প্রায় ২ বছরের উপরে তিনি অবৈধভাবে গ্যাস সংযোগ দিয়ে ভাডাটিয়াদের নিকট হতে প্রতি মাসে সরকারের নিয়মে টাকা নিচ্ছেন। এ বাড়ির মালিক প্রতিমাসে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছেন প্রায় ৯৭৫০ টাকা। সে হিসেবে প্রতি বছরে প্রায় ১১৭০০০/- ( এক লক্ষ সতের হাজার) টাকা, দুই বছরে প্রায় ২.৩৪.০০০/-( দুই লক্ষ চৌত্রিশ হাজার) টাকা সরকারের রাজস্ব না দিয়ে ভাড়াটিয়াদের থেকে এই টাকা তিনি আদায় করছেন। পাশের একজন বাড়ির মালিক প্রতিবেদককে বলেন, তিনি রাজউকের অনুৃমোদন না নিয়ে  বাড়ির নিচতলায় পার্কিংয়ের জায়গায় একপাশে একটি ইউনিট করে ভাড়া দিয়েছে, আরেক পাশে দুটি দোকান করে ভাড়া দিয়েছে, যা রাজউকের আইন নীতিমালা বহির্ভূত।

এ বিষয়ে সরেজমিনে জানার জন্য গেলে ৪০ নং মুন্সিবাড়ীর মালিক আব্দুল মমিন এটিভি প্রতিবেদককে জানান, তাদের বাড়িতেও সাংবাদিক থাকেন। ৬ তলায় থাকেন একটি এবং ৪ তলায় থাকেন আরেকটি পরিবার। তবে তিনি খুব আস্তে আস্তে কথা বলতে বলেন। তাদের বাড়ির ভাড়াটিয়া সাংবাদিকরা যেনো কোনভাবেই না জানেন। তথ্য নেওয়ার জন্য সাংবাদিকদেরও পরিচয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার বাড়ির ৪র্থ তলার সাংবাদিক উত্তরা প্রেসক্লাবের নির্বাচিত কমিটির নেত্রী। আমরা পরবর্তীতে তার সাথে এ বাড়ির অবৈধ গ্যাস সংযোগের বিষয় জানতে চাইলে সাংবাদিক নেত্রী আমাদের বলেন, তারা এ বাড়ির ভাড়াটিয়া, তারা ভাড়ায় আছেন, বাড়ির মালিক ভালো লোক। তিনি কিভাবে গ্যাস সংযোগ দিয়েছেন এ বিষয়ে তিনি জানেন না।

এ বাড়ির বিষয়ে তিতাস গ্যাস কোম্পানীর ক-২১৮, কুড়িল চৌরাস্তা মটস জোন- ৯ এর রাজস্ব বিভাগের ডিজিএম মোতাহার হোসেন এটিভি সংবাদকে বলেন, তিনি আগে জানতেন না এই বাড়িতে অবৈধ গ্যাস সংযোগ রয়েছে। তিনি এখন যেহেতু জেনেছেন তাই প্রথমে একটি তদন্ত কমিটির মাধ্যমে বাড়িটি তদন্ত করে তারপর বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে তিতাস থেকে অনুমতি না নিয়ে অবৈধ সংযোগ দিয়ে সরাকারের রাজস্ব ব্যক্তিগত কোষাগারে নেওয়ার অপরাধে আইনগত: ব্যাবস্থ গ্রহন করা হবে এবং এতে বাড়ির মালিকের জেল হাজতে যেতে হতে পারে।

ক-২১৮, কুড়িল চৌরাস্তা মটস জোন- ৯ এর বিপনন বিভাগের ডিজিএম প্রকৌশলী মোঃ মোতাহার হোসেন এটিভি সংবাদকে বলেন, উল্লেখিত বাড়িতে যতগুলো অবৈধ গ্যাস সংযোগ রয়েছে প্রতিটি সংযোগ হিসেবে তিতাসের মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা ও তিতাস আইন অমান্য করে নিজের ইচ্ছেমত অবৈধ সংযোগ দেওয়ার অপরাধে বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

সরকারের রাজস্ব ফাঁকির নেপথ্যে যারা কাজ করছেন তাদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন, এটিভি সংবাদের সম্পাদক এস এম জামান।