৪’শ রুশ সেনাকে হত্যার দাবি ইউক্রেনের, রাশিয়া বলছে ৬৩

আন্তর্জাতিক ডেস্ক এটিভি সংবাদ 

নতুন বছরের শুরুতে ৪’শ রুশ সেনা নিহত হয়েছেন ইউক্রেনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায়, এমনটাই দাবি কিয়েভের।

ইউক্রেনের সেনা সূত্রে জানা গেছে, রুশদের দখলে থাকা দোনেৎস্কে অঞ্চলে ওই ঘটনা ঘটেছে। ক্ষেপণাস্ত্র হামলার কথা স্বীকার করেছে সেখানকার রুশপন্থী প্রশাসনও। রুশ কর্মকর্তারা বলছেন, তাদের ৬৩ জন সৈন্য নিহত হয়েছে।

তবে এসব সংখ্যা নিশ্চিতভাবে যাচাই করা যায়নি। দোনেৎস্কের রুশ-সমর্থক কর্তৃপক্ষ হতাহতের কথা স্বীকার করলেও প্রথম দিকে কোন সংখ্যা নিশ্চিত করেনি।

সোমবার (২ জানুয়ারি) রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ইউক্রেনীয় বাহিনী যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া হিমার্স রকেট সিস্টেম ব্যবহার করে ৬টি রকেট নিক্ষেপ করে তবে দুটি রকেট গুলি করে ভূপাতিত করা হয়।

ksrm

এতে বলা হয়, আক্রমণের লক্ষ্যবস্তু ছিল একটি ভবন যাতে রুশ সৈন্যরা থাকতো। একজন রুশ কর্মকর্তা বলেন, এটি ছিল এক বড় আঘাত।

দোনেৎস্কের রুশপন্থী প্রশাসনের কর্মকর্তা দানিল বেজসোনভ জানিয়েছেন, নতুন বছর শুরুর দিন মধ্যরাতের মিনিট দুয়েক পর মাকিইভকা এলাকায় একটি কারিগরি শিক্ষার স্কুলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইউক্রেন । আমেরিকার দেওয়া ক্ষেপণাস্ত্রের মাধ্যমে ওই হামলা চালানো হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ নিয়ে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করা একটি পোস্টে বেজসোনভ জানিয়েছেন, ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বেশ কয়েকজন হতাহত হয়েছেন। তবে নির্দিষ্ট করে হতাহতের সংখ্যা উল্লেখ করেননি তিনি। তবে ইউক্রেনের সেনাদের দাবি, ৪০০ জন নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন ৩০০ জন। কমপক্ষে ২৫টি ক্ষেপণাস্ত্র হানা হয়েছে বলে জানিয়েছে দোনেৎস্কের রুশপন্থী প্রশাসন সূত্রে।

রুশ অনুষ্ঠান উপস্থাপক ভ্লাদিমির সলোভিয়ভ টেলিগ্রামে এক বার্তায় বলেন, অনেক প্রাণহানি হয়েছে – তবে তা ৪০০-র ধারেকাছেও নয়।

তবে রুশপন্থী ভাষ্যকার ইগর গিরকিন বলেন, নিহতের সংখ্যা শত শত, যদিও সঠিক সংখ্যা এখনো অজানা কারণ অনেকে এখনো নিখোঁজ রয়েছে। ভবনটি প্রায় পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে, এবং এতে গোলাবারুদ মজুত করা ছিল বলে ক্ষতি আরও বেশি হয়েছে বলে তিনি জানান।