আবাসিক ভবনে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ডিএনসিসি’র অভিযান

বিশেষ প্রতিবেদক, এটিভি সংবাদ 

গুলশানে ফুটপাত দখলমুক্ত করা, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্স খতিয়ে দেখা এবং আবাসিক এলাকায় অবৈধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। এ অভিযান চলাকালেই ওই ভবনের ছাদ থেকে পড়ে এক তরুণী মারা গেছেন, আহত হয়েছেন আরও একজন।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে গুলশান ২ এর ৪৭ নম্বর রোডের একটি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, মূলত ফুটপাত দখলমুক্তকরণ, ট্রেড লাইসেন্স খতিয়ে দেখা এবং আবাসিক এলাকায় বিনা অনুমতিতে পরিচালিত ব্যবস্থা বন্ধে এ অভিযান পরিচালনা করে ডিএনসিসি। দুপুরের দিকে ডিএনসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে আভিযানিক দলটি সঙ্গে ওই বাড়ির সামনে পৌঁছায় তখন ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় হঠাৎ ছাদ থেকে দুজন তরুণী নিচে পড়ে যান। তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি দেখতে পেয়ে ওই দুই তরুণীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে ওই স্পা সেন্টারে আর অভিযান পরিচালনা করেননি ম্যাজিস্ট্রেট।

ksrm

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মকবুল হোসাইন জানান, স্বাচ্ছন্দ্যে জনগণের চলাচল নিশ্চিত করতে ফুটপাত দখলমুক্ত করার জন্য অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছিল। সেই সঙ্গে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ট্রেড লাইসেন্স খতিয়ে দেখা এবং আবাসিক এলাকায় বিনা অনুমতিতে কোনো ব্যবসা পরিচালনা করা হচ্ছে কিনা তা দেখতেই অভিযানটি পরিচালিত হয়েছিল।

এদিকে গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহীনুর রহমান জানিয়েছেন, ডিএনসিসির ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই স্পা সেন্টার থেকে সাতজনকে আটক করে সন্ধ্যায় থানায় হস্তান্তর করেছে। আটক হওয়াদের বিরুদ্ধে দেহ ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় ডিএনসিসির পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ছাদ থেকে পড়ে মারা যাওয়া তরুণীর নাম ফারজানা (১৯)। তার বাড়ি খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা এলাকায়। আহত আরও এক তরুণী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন, তবে তার নাম জানা যায়নি।

ফারজানার স্বামী জাহিদ হাসান মিডিয়াকে বলেন, আমাদের বাসা খিলক্ষেত এলাকায়। গুলশানে একটি বিউটি পার্লারে কাজ করেন আমার স্ত্রী। সেখানে মোবাইল কোর্টের অভিযান চলছে শুনে ভয় পেয়ে সে ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে।

আপনার স্ত্রী কোন পার্লারে কাজ করতেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আজ প্রথম সে কাজে গেছে, আমি বিষয়টি জানি না।