atv sangbad

Blog Post

ক্ষুধার জ্বালা সইতে না পেরে নিজ সন্তানকে হত্যা করলেন মা!

কুমিল্লা প্রতিনিধি, এটিভি সংবাদ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে স্বামীর প্ররোচনা ও ক্ষুধার জ্বালা সইতে না পেরে ১৫ মাসের শিশু সন্তানকে বাড়ির পাশের ডোবায় ফেলে হত্যা করেছে মা রোকসানা আক্তার।

এ ঘটনায় পুলিশ রোকসানা আক্তারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার কাশিনগর ইউনিয়নের অশ্বদিয়া গ্রামে। জানা গেছে, কাশিনগর ইউনিয়নের বারৈয়া গ্রামের সবজি ব্যবসায়ী আমান উল্যাহর মেয়ে রোকসানা আক্তারের সঙ্গে গত কয়েক বছর পূর্বে বরিশাল থেকে আসা দিনমজুর ইবরাহিমের বিয়ে হয়।

দিনমজুর স্বামী স্ত্রী রোকসানাকে ৫০ হাজার টাকা নিয়ে বরিশাল যেতে বলে। কিছুদিন পর সে টাকা নিয়ে বরিশাল যায়। টাকাগুলো শেষ হয়ে গেলে রোকসানাকে আবার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় স্বামী ইবরাহিম। কয়েক মাস আগে রোকসানা স্বামীর সঙ্গে টাকা চেয়ে যোগাযোগ করে। কিন্তু তিনি টাকা দেননি। এ অবস্থায় রোকসানা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে।

স্বামীর কথায় রাগ ও ক্ষোভে রোকসানা শিশু সন্তানকে দুইবার পানিতে ফেলে দিলে গ্রামবাসী দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে। রোকসানা মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার দিনমজুর বাবা তাকে চিকিৎসা করায়। কিন্তু রোকসানা পরিপূর্ণভাবে সুস্থ হয়ে উঠেনি। দিন যতই যাচ্ছিল, ততই রোকসানা আরও মানসিকভাবে ভেঙে পড়তে থাকে।

গতকাল (১৯ জুলাই) সকাল থেকে রোকসানার শিশু সন্তান আরাফ হোসেন খাবারের জন্য কান্নাকাটি করতে থাকে। সে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করে খাবার জোগাড় করতে না পেরে পার্শ্ববর্তী অশ্বদিয়া গ্রামের একটি ডোবাতে আরাফাতকে ছুড়ে ফেলে দেয়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা ডোবাতে শিশুর লাশ ভেসে উঠতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশের সুরতহাল শেষে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় শিশুটির মা রোকসানা আক্তারকেও পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়।

এ ব্যাপারে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, স্থানীয়ভাবে জানা গেছে, শিশুটির মা রোকসানা আক্তার মানসিকভাবে অসুস্থ। আমরা শিশুটির লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসি। রোকসানা আক্তার নিজের এবং শিশু সন্তানের ক্ষুধার জ্বালা সহ্য করতে না পেরে ডোবায় ছুড়ে ফেলে তাকে হত্যা করেছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ব্রেকিং নিউজ :