atv sangbad

Blog Post

বীমার নামে দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া চক্রের ১৫ সদস্য গ্রেফতার!

সৈকত মনি, এটিভি সংবাদ 

জেনিথ ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি নামে নতুন ভুয়া ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি খুলে প্রতারণার মাধ্যমে প্রায় দেড় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক চক্রের ৫ রিং লিডারসহ ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) সকালে র‌্যাব সদরদফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক এএসপি আ ন ম ইমরান খান এটিভি সংবাদকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

র‌্যাব জানায়— চাকরিপ্রত্যাশী শত শত তরুণ-তরুণী ও ছাত্র-ছাত্রী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির বিজ্ঞাপন সরলমনে বিশ্বাস করে চক্রটির অফিসে যায়। সেখানে প্রথমে চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ৫২০ টাকা করে নেয়। পরে চাকরির নিশ্চয়তা ও মোটা অংকের বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা নিয়ে বিমা পলিসি খুলতে বাধ্য করে। ইউনিট ম্যানেজার, ব্রাঞ্চ ম্যানেজার, অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার প্রভৃতি পদে সাড়ে ১৮ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে ইন্স্যুরেন্স করাতে প্রলুব্ধ করতো চক্রটি।

এমনই তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার (২৪ অক্টোবর) সাভার মডেল থানার শিমুলতলা সুপার মার্কেটে অবস্থিত জেনিথ ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডে অভিযান চালিয়ে ১৫ জনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৪ এর একটি অভিযানিক দল।

ksrm

গ্রেফতাররা হলেন— এরশাদ শেখ (৩১), নাঈম শেখ (২৬), শহিদুল্লাহ (২৩), ইলিয়াস আহম্মেদ (২৫), জামাল উদ্দিন (৫২), জিয়াউর রহমান (২৫), মহসিন কবির (৪২), কামরুল শেখ (১৯), আজিজুল ইসলাম (২০), হুমায়ূন শেখ (২১), রাহাত ওরফে অনিক (১৯), মাওলানা মাইনুদ্দিন (২৩), বারহাম মিয়া (২০), হিজবুল্লাহ (১৯) ও চাঁন মিয়া (১৯)।

অভিযানে একটি সিপিইউ, একটি মনিটর, দুইটি প্রিন্টার, ১৫টি রেজিস্টার, ১৪টি মোবাইল, ১৪টি সিম কার্ড, ৯টি সীল, ৩০টি ভিজিটিং কার্ড, চারটি আইডি কার্ড, দুইটি ব্যানার, ২৫০টি বায়োডাটা ফরম, ২০০টি লিফলেট, একটি ক্যাশ ভাউচার এবং ৮টি আবেদন ফরম জব্দ করা হয়।

এএসপি আ ন ম ইমরান খান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা এ ধরনের প্রতারণার কথা স্বীকার করেন এবং চাকরিপ্রত্যাশী, বেকার, অসহায় লোকজনদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ আত্মসাৎ করার কথা স্বীকার করেছেন তারা।

প্রতারণার কৌশল
এ প্রতারকচক্র জেনিথ ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিতে বিভিন্ন পদে ফুল-টাইম, পার্ট-টাইম চাকরির বিজ্ঞাপন দিয়ে আসছে। বিজ্ঞাপন দেখে চাকরিপ্রত্যাশী শত শত তরুণ-তরুণী ও ছাত্র-ছাত্রী সরলমনে বিশ্বাস করে। প্রথমে চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ৫২০ টাকা করে নেয়। পরে চাকরির নিশ্চয়তা ও মোটা অংকের বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা নিয়ে ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিতে পলিসি খুলতে বাধ্য করতো।

র‌্যাবের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, চাকরি পাওয়ার পর মাসের পর মাস অফিসে আসা-যাওয়া করে বেতন না পেয়ে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে অনেকে তাদের টাকা ফেরত চাইলে বিভিন্ন ধরনের ভয়-ভীতি, মারধর এমনকি প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হতো।

এ প্রতারক চক্র এর আগেও প্রতারণার দায়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে একাধিকবার গ্রেফতার হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার দায়ে ঢাকা জেলার বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ব্রেকিং নিউজ :